শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক-

14th October, 2023
261




সম্পর্কের সম্মানঃ

কোনো কিছুর শুরুতে সবকিছু ঠিক থাকে। আত্মিক অনুভব নিজের চারপাশে নতুন পরিবেশ সৃষ্টি করে। আশেপাশের সবকিছু নতুন আবহাওয়ায় নিজেকে নতুন করে সৃষ্টি করে। কিছুদিন পর এই সম্পর্কের প্রকৃতিটা আমাদের মধ্যে একঘেয়েমি সৃষ্টি করতে থাকে। কারণ আমরা মানুষ নতুনত্ব আমাদেরকে পরবর্তী মূহুর্তের প্রতি আকৃষ্ট করায়। ভালোলাগা এমন একটা জিনিস যেটা প্রতিটা মানুষের মধ্যে যেমন নতুনত্ব সৃষ্টি করে তেমনি তার চেয়ে একটু ভালো কিছু আমাদেরকে সেই পরিবেশের প্রতি অনিহা সৃষ্টি করায়।

বর্তমান পরিস্থিতিতে ভালোলাগার বিষয়টা Short Time Relationship এর মধ্যে পরে। কারণ ভালোলাগা শুধু আমাদের কোনো কিছুর প্রতি আকৃষ্ট করায়। কিন্তু সত্যিকারের ভালোবাসা আমাদের অপ্রকাশ্যে ত্যাগ করতে শেখায়। যারা সত্যিকার অর্থে কাউকে ভালোবাসে তাদের প্রথম পর্যায় খুব কঠিন থাকে। কারণ তারা অনুভব করে। কিন্তু কিসের জন্য অনুভব করে তার কোনো কারণ খুঁজে পায়না। যা তাদের প্রথম পর্যায়ে খুবই বিরক্ত অনুভব করায় যেকোনো কিছুর প্রতি। আস্তে আস্তে সে যখন তার আত্মিক অনুভবের মানুষটাকে খুঁজে পায়। তখন তাকে সে এতটাই সম্মানের পর্যায়ে রাখে যে, তার যেকোনো পরিস্থিতিতে তার ঢাল হয়ে থাকে। আর এর কারণেই সবসময় তাকে হারানোর ভয়ে নিরবতায় তার প্রতিরক্ষার্থী হিসেবে থেকে যায়। কিন্তু তার প্রতি অনুভবের কথা কখনো সে প্রকাশ করতে পারে না।

প্রকৃত অর্থের ভালোবাসা মানুষকে ত্যাগ করতে শেখায়, নিজেকে মানায় নিতে শেখায়। এককথায় নিস্বার্থ মানুষ যাকে বলে। ভালোবাসায় অপর ব্যক্তির সুখ আমাদের বাচঁতে শেখায়। তার ভালোর জন্য তাকে সঠিক রাস্তা দেখায়। কিন্তু কোনো কিছু পাওয়ার আশায় নয়, তাকে সুখী দেখার আশায়। আর তার এই নিষ্পাপ অনুভব তার প্রতি তার পছন্দের মানুষের কাছে, তাকে তার প্রতি আকৃষ্ট করায়। যতদিন পর্যন্ত সে তার নিস্বার্থ মনোভাব বজায় রাখতে পারে।

বিশেষ কিছু মূহুর্তে আমরা নিজেদেরকে সর্বসুখী মনে করি। কারণ আমরা যেমন অল্প কিছুতে খুশি হই, তেমনি অল্প ভুল বোঝাবুঝিতেই খুব কাছের মানুষগুলো থেকে দূরে যেতে সময় নেই না। শুধু প্রকৃত অর্থের ভালোবাসা একটা সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখতে পারে না। যদি তাদের এই সম্পর্কটার প্রতি সম্মান আর নিজেদের প্রতি আস্থা না থাকে। জোর করে একজনের সাথে মানায় নেওয়া সম্ভব। কিন্তু বন্ধুত্বপূর্ণ ভালোবাসার সম্পর্কগুলোতে একে অপরের পাশে থেকে প্রত্যেকটা মুহূর্ত স্বর্গানুভবের জীবনযাপন সম্ভব।

বিঃদ্রঃ একজন লেখক বা লেখিকা কখনো কারোর বা ব্যক্তিগত বিষয়ে লেখালেখি করে না। তারা নিজেদের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে বর্তমান সমাজের পরিস্থিতি বিবেচনা করে লেখালেখি করে, ধন্যবাদ।

রিলেটেড পোস্ট


মানুষ শুদ্ধতার শেষ স্তরের অনুভব করে থাকে নিজের জন্য-
পড়া হয়েছে: ৪৮৮ বার

সৃষ্টতার আবির্ভূত মনোভাব মানুষকে উজ্জীবিত করে তোলে-
পড়া হয়েছে: ৩৭৫ বার

নিশ্চুপ পরিস্থিতির অবুঝ মুহুর্ত-
পড়া হয়েছে: ১৮৪ বার

সমাপ্তির পথচলা-
পড়া হয়েছে: ১৭১ বার

মন খুলে বাঁচো-
পড়া হয়েছে: ১৯৭ বার

আত্মপ্রকাশের অনুভবে স্মৃতির পাতায় গাঁথা ভেজা মুহুর্তগুলো-
পড়া হয়েছে: ৩৩১ বার

পরাক্রমশালী শক্তির মনোভাবে তৈরিকৃত জীবন-
পড়া হয়েছে: ১০৫৫ বার

পরাক্রমশালী মনোভাবে তৈরিকৃত জীবন-
পড়া হয়েছে: ৪৯২ বার

মানুষের অনুভবের ভিত্তিতে তার বিবেচনার গাঢ়ত্ব বাড়ে-
পড়া হয়েছে: ১৬৬ বার

অর্জিত আস্থাই মানুষের মনে বিশ্বাস তৈরি করে-
পড়া হয়েছে: ২৭৬ বার


আরো নিবন্ধন পড়ুন



ফিলিস্তিনে জরুরি ওষুধ পাঠানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর Wednesday, 18th October, 2023
ফিলিস্তিনের হাসপাতালে বোমা হামলায় হতাহতদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে জরুরি ওষুধ পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার বিকেলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেককে এই নির্দেশনা দেন সরকার প্রধান। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম প্রধান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধবার বিকেলে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে শেখ রাসেল দিবস-২০২৩ উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জরুরি ওষুধ পাঠানো নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনার তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফিলিস্তিনের জনগণের কষ্ট বোঝেন, ইসরায়েলের হামলায় হতাহত নারী-শিশুদের বেদনা অনুভব করছেন তাঁর নিজের জীবনের হতাহতের ক্ষত থেকে। শিশু রাসেলের হত্যায় কী বেদনা হয়েছে, সেটি প্রধানমন্ত্রী বুঝতে পেরেছেন। এজন্যই বিশ্ব পরাশক্তিদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করেও প্রধানমন্ত্রী ফিলিস্তিনের নিরীহ অসহায় মানুষের জন্য কথা বলছেন, তাদের চিকিৎসা সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিয়েছেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী সভায় উপস্থিত স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব জাহাঙ্গীর আলমকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘আমরা অতি দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ফিলিস্তিনের আহত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে চিকিৎসাসেবা দিতে চাই। এক্ষেত্রে দ্রুততম সময়ে ওষুধসামগ্রী পাঠাতে আমাদের সামর্থ্যের মধ্যে সম্ভব সব চেষ্টাই করতে হবে।’ স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যশিক্ষা বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ ও শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এবং যুগ্মসচিবেরা।
চীনা মানচিত্র থেকে মুছে দেওয়া হলো ইসরায়েলের নাম Tuesday, 31st October, 2023

চীনা মানচিত্রগুলো থেকে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলের নাম মুছে দেওয়া হয়েছে। ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের সঙ্গে চলমান ইসরায়েলিদের যুদ্ধের মধ্যে চীনের কয়েকটি কোম্পানির মানচিত্রে এমনটি দেখা গেছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, চীনের কোম্পানি বাইদুর ডিজিটাল মানচিত্রে ইসরায়েলের ভূখণ্ড দেখালেও নাম উল্লেখ করা হয়নি। এদিকে আলিবাবার মানচিত্রে লুক্সেমবার্গের মতো ছোট দেশের নাম উল্লেখ থাকলেও ইসরায়েলের নাম দেখা যায়নি। 

এ পরিবর্তনটি কিছু চীনা ইন্টানেট ব্যবহারকারীর চোখে পড়ার পর এটি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। এ নিয়ে বাইদু ও আলিবাবার পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলা হয়নি।

হামাসের সঙ্গে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে যুদ্ধবিরতির কথা বলে আসছে চীন। তবে গত সপ্তাহে বেইজিং জানায়, ইসরায়েলের আত্মরক্ষার অধিকার রয়েছে। এর আগে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং মিসর এবং অন্যান্য আরব দেশগুলোর সমন্বয়ে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছিলেন।

গাজা উপত্যকায় গত ২৩ দিন ধরে সংঘাত চলছে। এ সময়ে গাজায় ইসরায়েলের নির্বিচার বিমান হামলা ও গোলাবর্ষণে এ পর্যন্ত ৮ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। গত ৭ অক্টোবর হামাসের আকস্মিক হামলার পর গাজায় হামলা শুরু করে ইসরায়েল।

ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ ব্যক্তি ছিঁড়ছে সম্পর্কের পাতা- Friday, 08th December, 2023

সম্প্রদায়ের শক্তিঃ

​​​​​​মানুষের তাগিদের অতিরিক্ততায় কেউ অনেক সময় রক্তের সম্পর্ককে অস্বীকার করে ফেলে। যখন কেউ সেই ব্যক্তির পরিস্থিতি বোঝার জায়গায় সবসময় তাকে দোষারোপ করে থাকে। মানুষ নিজের তাগিদে করতে পারে না, এমন কিছু নাই। কিন্তু যখন মানুষ পরিবারের তাগিদে কোনো কিছু অস্বিকার করে। তখন সেই ব্যক্তিকে তার পরিবারের সদস্যরাই অতিরিক্ত ভুল বোঝে। যখন তার পাশে সবথেকে বেশি দরকার ছিল তার পরিবারের। কিন্তু মাঝে মাঝে পরিবারের জন্য পরিবারের কিছু ত্যাগই তাকে সবথেকে বেশি দুর্বল করে থাকে। যার কারনে এই ধরনের ব্যক্তিগুলো কখনোই নিজের দায় কমাতে পারে না। কিন্তু সামনে থেকে সবার সামনে সে স্বার্থবাদী ব্যক্তি হিসেবে উপস্থিত হয়। কিন্তু তার জীবনে মানুষের ভালোর জন্য ত্যাগের পরিমাণ বেশি হয়ে থাকে। হয়তো এই কারণে সমাজে তার মূল্য থাকলেও পরিবারের কাছে থেকেও সম্পর্কের দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হয়।

সমাজে যে তোমাকে বেশি আপন মনে করাবে। বুঝে নিও সেই ব্যক্তি না চাইতেও তোমার হালকা কষ্টের কারণ হবে। কারণ বেশি মূল্যায়িত ব্যক্তিগুলোর সামান্য কিছু বিষয়ও অতিরিক্ত অনুভবের কারণ হয়। যখন সেই বিষয়ে কিছু প্রকাশ না করতে পারার পরিস্থিতিতে ব্যক্তিগুলোর কষ্ট একটু বেশি হয়। তখন বিষয়টার প্রতি অপ্রকাশ্যে হয়তো কেউ প্রয়োজনের চেয়ে বেশি জড়িত থাকে। যার কারনে অপ্রকাশ্যে অনুভবকৃত মানুষগুলো সাধারনের মাঝেও নিজেদের ব্যক্ত করে যায়। কিন্তু বাস্তবতা সবসময় মানুষকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ শেখায়। যার কারণে মানুষ ত্যাগেও তাদের শান্তি খুঁজে নেয়। তাই কোনো কিছু হয়তো মানুষকে দুর্বল করে। কিন্তু সেই মূহুর্তের দুর্বলতাগুলোই একসময়ে কারোর ভিতরের চিরস্থায়ী শক্তিতে রূপান্তরিত হয়। যখন ব্যর্থাতায়ও কেউ নিজেকে মানসিকভাবে শক্ত রাখতে পারে।

স্বপ্ন Saturday, 06th January, 2024

স্বপ্ন

মরে যাওয়া শেষ স্বপ্নটার লাশ পড়েছিলো কোন এক রেলস্টেশনের অন্ধকার কোনে স্টেশনের আলো ওখানে কখনো পৌঁছায় না অদ্ভুত লাশটার চোখে কোন পাতা নেই ঠিক যেন মরা মাছের চোখ মাঝরাতের নিঝুম স্টেশন

কেউ নেই সেই মৃত স্বপ্নের চোখে একবার চোখ

রাখবে

তাতে অবশ্য কিছু আসে যায় না স্বপ্নটার সেতো মৃত, যখন জীবিত ছিল তখনই কেউ দেখেনি

তাকে

আচ্ছা, স্বপ্নটা যার ছিল, সে এখন কই কি নিয়ে বেচে আছে সে এখন

শেষ স্বপ্নটাও যে মরে গেলো তার

দাফনের পয়সাটাও হয়তো ছিলোনা তার কাছে

তাই ফেলে গেছে এই নিঝুম রেলস্টেশনের কোনায় চোখের কোনায় তারও জমে হয়তো খুব সামান্য

অশ্রু

আবার কোন নতুন স্বপ্ন দেখার সাহস তার আর হবেনা এজন্মে পরের জন্মের জন্য হয়তো কিছুটা জমা থাকবে

পরের জন্মে হয়তো সে একটা জোনাক হবে জ্বলবে নিভবে ........জ্বলবে নিভবে ...