Break up ????

31st January, 2024
40




ব্রেকাপের ভয়টাই আমরা পাই, বিচ্ছেদের

ভয়টা নয়।

বিছানার আদরটাই আমাদের জানা, একদিন বিছানার পাশের ফাঁকা জায়গাটা আমাদের মাথাতেও

আসে না।

প্রেমের পর শুধু বিয়ে না হওয়ার ভয়টাই আমরা পাই, বিয়ের পর শেষদিন জীবনের শেষ

বিয়ের সাজটার আশঙ্কা আমাদের কল্পনাতেও আসে না। সেদিনের বিয়েতেও চন্দনে সাজবে।

একে অপরকে জড়িয়ে থাকার তৃপ্তিটাই আমরা চাই, কিন্তু একে অপরকে ছেড়ে থাকার

স্বাদটা আমরা পাইনা।

বর্তমানে একে অপরে অভিমান আর ইগোয় পোড়ার যন্ত্রনাটুকুই আমরা পাই, কিন্তু একে

অপরকে ছেড়ে ভবিষ্যতে চিতার আগুনে পোড়ার যন্ত্রনাটা আমাদের মনেও থাকে না। ভুলে

যাই এটাই যে আজ দুজন পুড়ছি অন্তরে অন্তরে, সেদিন একজন পুড়বে বাহিরে অপরজন

অন্তরে।


আরো নিবন্ধন পড়ুন



মানুষ তার অনুভবের উপর নির্ভর করে- Thursday, 02nd November, 2023

জীবনের ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টাঃ

কখনো যদি মনে করো তোমার পরাজয় নিশ্চিত। আবার কখনো যদি দেখো সবকিছু তোমার ভিতরে চাপ সৃষ্টি করছে। কিন্তু তুমি কিছু বলার মতো অবস্থাতেও নাই। তখন চিন্তা করার কিছু নাই, শুধু নিজেকে আলগা রাখা ছাড়া। কারণ ওই মূহুর্তে তুমি যা কিছুই বলো বা করো না কেনো সবকিছু তোমার বিপরীতে থাকবে। এইজন্য পরিস্থিতি সামলাতে কখনো না পালিয়ে নিজেকে ভিতর থেকে শক্ত করে শুধু শান্ত রেখে যাও। তাহলে সেই পরিস্থিতির কোনো কিছুর প্রভাব তোমাকে গ্রাস করবে না।

চলতে গিয়ে না বুঝে হোঁচট খাওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু হোঁচট খাওয়ার ভয়ে চলতে গিয়ে দ্বিধাবোধ করা অস্বাভাবিক। দ্বিধাবোধ মানুষের জীবনের করুন অবস্থা তৈরি করে। যা তাকে বিষন্নতার অন্ধকারে ভোগাতে থাকে। একবার ভয় পেয়ে দ্বিধাবোধের পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে গেলেও, পরবর্তীতে এই বিষয়ের সাথে যুক্ত ছোট কিছুতেও পূর্বের ভয় নতুন করে তোমার মস্তিষ্ককে ভেতর দিয়ে এমনভাবে গ্রাস করবে। যা তোমার চিন্তা-ভাবনা থেকে শুরু করে ধীরে ধীরে সম্পূর্ণরূপে তোমাকে বদলে দেবে। যা প্রত্যেকের কাছে তোমার পরিচিত বদলে দেবে। অনুভব এমন একটা জিনিস যা মানুষকে যেকোনো পরিস্থিতি থেকে স্বাভাবিক হতে সহায়তা করে। এইজন্য তুমি যা কিছুই করো না কেনো আর যে পরিস্থিতিতেই থাকো না কেনো, সবসময় সঠিক বিবেচনায় আত্মবিশ্বাস বজায় রেখে নিজেকে পরিচালনা করার চেষ্টা করো। তাহলে তোমাকে কোনো ভোগান্তির শিকার হতে হবে না।

শেষের চিন্তা করলে বর্তমান হারিয়ে অতীতে পরিণত হতে থাকে। তাই কোনো কিছুর চিন্তা বাদ দিয়ে যেই সময়ের যা কিছু, সেই সময় সেই বিষয়টার পর্যালোচনা করা উচিত। তাহলে হয়তো যেকোনো কিছুর সর্বোচ্চ সাফল্য নিশ্চিত করা সম্ভব। কারণ কোনো কিছু করার পূর্বের চিন্তা একটুতে সীমাবদ্ধ থাকে না। সময় থেকে সময়ে ওই বিষয়ের জন্য পরিবর্তিত চিন্তা কাজ করতে থাকে অনেকের মধ্যে। যা তাকে ওই কাজের সময়ে পূর্বের থেকে এই পর্যন্ত নেওয়া সব সিদ্ধান্তের মধ্যে বিভ্রান্তিতে ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়াবে। যা খুব বাজে ভাবে তাকে ভেতর থেকে চাপ অনুভব করাবে। তারপর থেকে হয়তো তার নিজের ওপর থেকে এমনভাবে বিশ্বাস উঠে যাবে, যে সিদ্ধান্ত নেওয়া দূরে থাক। কোনো কিছুর উপর বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়ে তার মেজাজ খিটখিটে হতে থাকবে। যা তার বিবেচনা শক্তি হারিয়ে একটা পশুর স্বভাবের রূপ দিতে থাকবে। এইজন্য আগে থেকে কোন কিছু চিন্তা না করে মন ভালো রেখে মাথা ঠান্ডা করে যখনের বিষয় তখনই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। তাহলে হয়তো আর খারাপ কোনো কিছুর সম্মুখীন হয়ে বিষন্নতায় ভুগতে হয় না কাউকে।

অনুভব শুনতে খুব হালকা লাগলেও। এর প্রভাব অনেক প্রখর। একেকটা বিষয়ের অনুভব একেক রকম। যেকোনো কিছুর অনুভবের ওপরই ওই বিষয়টার প্রতি তার একঘেয়েমি বা আকৃষ্টতা তৈরি হয়। যখন তুমি কোন কিছু ভেতর থেকে অনুভব করবা তখন তুমি সেই বিষয়টার প্রতি আকৃষ্ট হতে থাকবা। কিন্তু তার থেকে একটু ভালো কিছু তোমাকে ওই বিষয়টার প্রতি একঘেয়েমি তৈরি করে নতুন বিষয়ের প্রতি আকৃষ্ট করাবে। অনুভবের পরিবর্তন যেমন দ্রুত হয়। তেমনি কোন কিছুর প্রতি এর গাঢ়ত্ব তোমাকে সেই বিষয়টার প্রতি একবারই অনুভব করাবে। এরপর তার থেকে যত ভালো কিছুই তোমার সামনে আসুক না কেন। সেই বিষয়ের ওপর তোমার অনুভব অটুট থেকে যাবে। এই অনুভবের খারাপ দিক হলো- তোমাকে অপ্রকাশ্যে রাখবে সবকিছু ঠিক রাখতে। তাই অনুভব কর সবকিছুর প্রতি। কিন্তু অনুভবের গাঢ়ত্ব রাখো নিজের প্রতি। যা তোমাকে পেতে সাহায্য করবে হারাতে নয়।

মানুষের অনুভবের ওপরই তার কোনো বিষয়ের প্রতি সফলতা বা বিফলতা নির্ভরশীল। তাই আত্মবিশ্বাস বজায় রেখে সবকিছু অনুভব করে এগিয়ে গেলে যেকোনো বিষয়ের সফলতা নিশ্চিত।