সফলতা

10th January, 2024
62




জীবনে অসফল হওয়া এমন অনেক মানুষই আছেন যারা এই জিনিসটা বোঝেন না যে, যখন তারা হার মেনে নিয়েছিল তখন তারা সফলতার কতো কাছে ছিলো।


আরো নিবন্ধন পড়ুন



কিছু বলার নাই.............. Sunday, 07th January, 2024

তাকিয়ে তাকিয়ে তোমার অামার কাছে থেকে দূরে চলে যাওয়া দেখছি । চোখে জল এসে তাকিয়ে থাকাটা ঝাপসা করে দিচ্ছে ,আমি চোখের জল মুছতেছি না তাকে ঝরে দিতে দিচ্ছি কারণ এখন আর তুমি আমার কান্নাটা দেখবে না ,একটা সময় ছিলো যখন খুব কান্না পেলেও তোমার কষ্ট হবে বলে বার বার চোখ মুছতাম যেন তুমি আমার চোখের জল না দেখ ,যেন আমার কারণে তুমি এতো টুকু কষ্ট না পাও । আমি আজও চাই আমার জন্য তুমি কোন কষ্ট না পাও তাই তো আর তোমার চলে যাওয়ার সময় পিছু ফিরে ডাকতে পারছি না .জানো খুব ইচ্ছা করছে তোমাকে মনে করিয়ে দিতে তোমার দেওয়া প্রমিজগুলো !!!বলেছিলে যাই হোক পৃথিবীটা যতই বদলে যাক তুমি বদলাবে না ,বদলাবে না তোমার ভালবাসাও , আমাকে ছেড়ে তুমি থাকতেই পারবে না ,আজ তুমি সত্যিই বদলে গেছ............এতোটাই যে তুমি আমার মন খারাপ হলে বুঝতে পারতে সেই তুমি আজ আমার কন্নাজড়িত কষ্ট শুনেও শোন না , এখন তুমি দিব্যি থাকতে পারো আমাকে ছাড়া দিনের পর দিন !!

  কোন একদিন খুব গর্ব করে বলতাম আমার ভালবাসা যদি সত্যি হয় তুমি আমাকে ছেড়ে যেতেই পারো না !! যতদুরেই যাও আমার কাছেই তোমার ফিরে আসতে হবে কিন্তু তুমি চলে যাচ্ছো আমাকে ছেড়ে প্রতিদিন দূর থেকে দূরে  আমি কিছু বলতে পারছিনা শুধু একটা কথাই মনে হচ্ছে আমার ভালবাসাটা সত্যি ছিলো না !!! হয়ত কোনদিন আমি তেমন করে তোমাকে জড়াতে পারিনি আমার ভালবাসার মায়ায় ...যে তুমি আমার ভালবাসার কোন দামই দিলে না সেই তোমাকে জোর করে ধরে রাখতে চাইনা ।

 তুমি চলে যাও যেখানে তুমি সুখ খুজে পাও আমার কিছুই বলার নেই !!!

 ..........................................ভাবনা

আত্মপ্রকাশের অনুভবে স্মৃতির পাতায় গাঁথা ভেজা মুহুর্তগুলো- Wednesday, 13th December, 2023

নির্বিশেষের অনুভবকৃত বিষয়ের আত্মপ্রকাশঃ

মানুষ সেইসব বিষয় কখনোই ভুলতে পারে না। যেই বিষয়গুলো কেউ নিজে থেকে অনুভব করে। কারণ একটা মানুষ পরিস্থিতির মায়া কাটাতে পারে। কিন্তু কিছু বিষয়ের ক্ষণস্থায়িত্ব জেনেও যদি কেউ অনুভব করতে থাকে। তখন হয়তো সেইসব ব্যক্তি তার অনুভবগুলোকে কখনোই ছাড়তে পারে না। কারণ বিষয়টাকে কেউ নিজের আরেকটা অংশ হিসেবে জীবনে জায়গা করে দেয়। যখন বিষয়টার প্রতি কারোর চাওয়া-পাওয়া থাকে না। কিন্তু বিষয়টার একটু অনুভবও তাকে শান্ত করে দেয় যেকোনো পরিস্থিতিতে। এইজন্য নিজ অনুভবকৃত বিষয়গুলো কাউকে এমনভাবে জড়িয়ে রাখে। যখন কেউ বিষয়টাকে মনে না রাখলেও সেই সম্পর্কিত যেকোনো কিছু কারোর মধ্যে পুরোনো অনুভব নতুন করে জাগায়। তখন হয়তো কেউ দায় থেকে মুক্ত থাকে। কিন্তু ভেতরের অনুভবগুলোর স্থায়িত্বে সবসময় কিছু ব্যক্তি জীবনের চাপে নিজের মধ্যে আবদ্ধ থাকে।

মানুষ বিভোর হয়ে থাকে সেইসব মূহুর্তে। যেই মূহুর্তগুলোকে ভেতরের জড়তার কারণে বদলাতে অসক্ষম রয়ে যায়। কারণ একটা ব্যক্তি তখনই থমকে যায়, যখন সবকিছু বুঝেও পরিস্থিতির দায়ভারে নিজেকে নির্বোধভাবে পরিচালনা করতে হয়। মানুষ সবকিছু পারলেও তার ভেতরের অনুভবগুলো কাউকে নিজের মতো অনুভব করাতে পারে না। যার কারনে অপ্রকাশ্যের অনুভবে কেউ নিজেকে ভাঙা গড়ার মাঝে আবদ্ধ করে রাখে। যখন সময়ের সাথে প্রত্যেকটা বিষয়ের স্পষ্টতা বাড়তে থাকে সেইসব ব্যক্তির মধ্যে। বর্তমানে মানুষ কাউকে শেখায় না। কারণ সময়ের অভাবে বেশিরভাগ মানুষ ভালো থাকার তাগিদে নিজের থেকে শিখতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। যখন কাজের মাঝেও অনেকে নিজের ভেতরকার বিষয়গুলো অপরিবর্তিতভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়। কারণ কারোর জীবনের মূল উদ্দেশ্য হয়ে থাকে সবকিছুর মাঝেও নিজেকে ভালো রাখা।