কিছু কষ্টের গল্প.............

07th January, 2024
26




একটি ছেলে যার ছিল অনেক স্বপ্ন। অনেকের সাথে বন্ধুত্ব করবে সে। এই কারনে তার ফেসবুক এ আইডি খোলা। তার নাম ছিল রাফা। সে স্কুল-এ খুব চুপচাপ থাকতো। স্কুলে ছিল তার অনেক বন্ধু। কিন্তু সবাই ছিল ছেলে। কোন মেয়ের সাথে তার বন্ধুত্ব হয়নি। ফেসবুক আইডি খুলেছে সে ২০০৯ সালে। তখন সে প্রতিদিন এ সাইবার ক্যাফ-এ গিয়ে ফেসবুক ব্যভার করতো। সে কখনো ভাবে নি যে তার আজ এই পরিস্থিতির সম্মুখিন হতে হবে। তখন তার ফেসবুক আইডি তে ও কোন মেয়ে বন্ধু ছিল না। ঈদের ছুটিতে বাড়ি যায় সে। জানতে পারে যে তার মামাতো ভাইয়ের ফেসবুক আইডি আছে। ভাইকে তার ফ্রেন্ড লিস্ট এ অ্যাড করল সে। তার ভাই তাকে পরিচয় করিয়ে দিলো তার অনেক বন্ধু-বান্ধব এর সাথে। সাথে তার জিএফ এর সাথেও। রাফা তার ভাই এর জিএফ কে ভাবি বলে ডাকতো FB তে । সামনাসামনি তাদের এখন দেখা হয় নি।

   রাফা অনেক দুস্টামি করতো তার ভাবির সাথে। হঠাৎ একদিন তার ভাবি তাকে বলল তোমার জিএফ নাই। সে সরাসরি উত্তর দিলো না। ওর ভাবি একজন এর প্রফাইল লিঙ্ক দিয়ে বলল তোমার মত আমার এই বান্ধবীটিও একা। রাফা তাকে ফ্রেন্ড রেকুয়েস্ট পাঠায়। মেয়েটি এক্সেপ্ট করে। তার নাম তানি। তাদের মধ্যে অনেক দিন কথা হয়। তানি কে তার খুব ভালো লেগে যায়। কিন্তু সাহস হয়নি কখনো বলার। এমন করে অনেক দিন কেটে গেল। রাফার SSC পরীক্ষা এসে পরে। পরীক্ষার আগে একদিন সাহস করে তানি কে তার ভাল লাগার কথা বলে। তানি ৩ দিন এর সময় নেয়। এর পর এর কাহিনী আমি আগামি কাল লিখব…………… ৩দিন সময় নিয়ে সে আর আসে না… ৩দিন এর জায়গায় ১৫দিন পার হয়ে যায়। কিন্তু তানি এখনও অনলাইন এ আসে নি। আমি আমার বিশ্বাস হারিয়ে ফেলি। তানি কে পাব না বলে ধরে নিলাম। তখন এত কষ্ট লাগে নি। ৩সপ্তাহ পর ………… একদিন দেখি তানি অনলাইন এ। আমি তাকে কিছু বললাম না।

  সে আমাকে বলল আমি তোমার প্রোপজাল আমি এক্সেপ্ট করলাম। আমি তখন ও এত খুসি হয় নি। আমি তানি কে জিজ্ঞাসা করলাম, এত দিন কোথায় ছিলে?? তানিঃ হ্যাঁ বলব নাকি না বলব তা চিন্তা করতে করতে আমার জ্বর এসে গিয়েছিল। তাই আস্তে পারি নি। এর পর থেকে অনেক কথা হত আমাদের। SSC পরীক্ষা শেস হওয়ার পর একটি মোবাইল কিনলাম। তানি আর আমি এবার মোবাইলে কথা বলেই দিন কাঁটিয়ে দিতাম। এভাবে ৫ টা মাস পার হয়ে গেল…… তানির ফেমিলি থেকে চট্টগ্রাম আসছে সবাই। আমাদের দেখা করার সুযোগ হয়ে এলো। তানি তারিখ ফিক্সড করে জানায়। আমদের সুন্দর ভাবে দেখা ও হয়। আমার জীবনের এইদিনটি অতি গুরুত্তপূর্ন। আমি অন্য দিনের কথা ভুল্লেও এইদিনের কথা ভুলবো না। জীবনে এই প্রথমবার সরাসরি কোন সমবয়সী মেয়ে এর সাথে কথা বলছি তারপর আবার আমি তাকে ভালবাসি। তখন জানি না আমি কোন দেশে হারিয়ে গিয়েছিলাম। একে অন্যের হাত ধরে অনেক্ষন বসে ছিলাম।

   অনেক একে অন্যের চোখের দিকে তাকিয়ে আছি। তারপর দিন সে আবার ঢাকায় চলে গেল। আমার খুব দুঃখ হচ্ছিল যখন তানি চলে যাচ্ছিলো। মোবাইলে কথা বলতাম। তারপরও কেমন জানি লাগতো আমার। শুধু দেখা করতে ইচ্ছা করত। হঠাৎ একদিন তানি এর কোন খোঁজখবর নেই। কল ধরে না। কল ও করে না। আমি তো খুব চিন্তিত। ৮ দিন পর কল এলো তার নাম্বার থেকে। কিন্তু কন্ঠটা তার না। কান্না কান্না কন্ঠে সে মেয়েটি বলল… ভাইয়া, আপু আর নেই। আমি প্রথমে বুঝলাম না কি বলতে চাইছে। জিজ্ঞাসা করলাম সে কে? উত্তর আসলো সে তানির ছোট ভোন। তানি কোথায় জিজ্ঞাস করতেই উত্তর দিল আপু আর পৃথিবীতে নেই। এ কথা বলেই কেঁদে দিলো। আমার মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়লো। আমি ঢাকায় যাওয়ার অনেক চেষ্টা করলাম কিন্তু পারলাম না। আবার অই নাম্বার এ কল দিলাম। জিজ্ঞাসা করলাম কিভাবে মারা গেল। বলল ৯ দিন আগে এক্সিডেন্ট হয়েছিল। গতকাল কথাও বলেছে। কিন্তু আজ সকাল ৭টা থেকে আবার আগের অবস্থায় ফিরে গেল।

 অবস্থা খারাপ এর পথে যেতে থাকে এবং ১১ টার দিকে মারা যায়। আমার জীবনে এত দুঃখ কখনও পাইনি। অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছিলাম। হঠাৎ একদিন তানির নাম্বার থেকে ১টা মেসেজ আসলো, যা পাঠিয়েছে তার ছোট ভোন। লেখা ছিল “ ভাইয়া, ওই দিন আমি আপনাকে সব কথা বলতে পারি নাই।

  আপু আমার কাছে আপনার জন্য একটা মেসেজ দিয়ে গিয়েছিল। মেসেজ টা হল “ আমার মনে হয় চলে যেতে হবে। তুমি আমার জন্য কাদবে না। আমার মত অথবা আমার থেকে আর ভাল কাও কে পেলে জীবন সাথী করে নিও। আমার কথা মনে করে কখনও কাদবে না, মন খারাপ করবে না। যদি বেঁচে থাকি তাহলে দেখা হবে ইনশাল্লাহ।“” এই মেসেজ পরে আমার আরও কান্না পেল। কষ্ট নিয়ে কাটিয়ে দিলাম এতটা দিন। তবে দুঃখ টা আরও বেড়ে গেল গত মাসের ২৮ তারিখ। আমি আমার বন্ধু আশিক, আসিফ, সজল এর সাথে অনেক্ষন দুষ্টামি, আড্ডা করে বাসায় ফিরলাম। কিন্তু ঘরে ডুকতেই কারন্ট টা চলে গেল। আমি আবার আড্ডা দেওয়ার স্থান এ গিয়ে বসলাম। ঠিক তখনি আমি দেখতে পেলাম আমার সামনে একটি গাড়িতে বসে আছে। আমি আমাকে বিশ্বাস করতে পারলাম না। তখনি আমি আমার মোবাইল থেকে তানি এর নাম্বার এ মিস কল দিলাম। দেখলাম ওই মেয়ে টা তার মোবাইলটি হাত এ নিলো। আমি আবার মিসকল দিলাম। আবার সেই মেয়েটি মোবাইল হাত এ নিলো। আমি পুরো সিউওর হয়ে গেলাম এটা তানি। আমি অনেক্ষন তার দিকে তাকিয়ে ছিলাম আর কাঁদছিলাম। হঠাৎ বুঝলাম তানিও আমাকে দেখেছে। সে গাড়ি থেকে বের হয়ে এলো। আমি মনে করেছিলাম ও আমার দিকে আসবে। কিন্তু না সে তার গাড়িতে ঢেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে রইলো আর আমার দিকে তাকিয়ে রইলো। তানি কে দেখে তখন আমার খুব ঘেন্যা হচ্ছিলো। আমার সাথে অনেক খারাপ কাজ করেছে সে। আমি ঐ স্থান থেকে সাথে সাথে চলে এলাম… চলে আসার সময় আমি পেছন ফিরে তাকালাম। দেখলাম সে আমার দিকে তাকিয়ে আছে…………………………………


আরো নিবন্ধন পড়ুন



AI is coming for you with a new dimension Thursday, 14th December, 2023

ভবিষ্যতে Artificial Intelligence (AI) ক্ষেত্রে অনেক পরিবর্তন আনা যাচ্ছে, এবং এটি বিভিন্ন শাখার মাধ্যমে আমাদের দৈর্ঘ্যবাদী পরিবর্তনের সৃষ্টি করতে সক্ষম। কিছু মৌলিক পরিবর্তনের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে:

1. **ভাষা সাবলীলতা এবং সেমান্টিক অ্যানালাইসিস:** AI সাবলীলতা এবং সেমান্টিক অ্যানালাইসিসের ক্ষেত্রে অনেক উন্নতি হতে চলেছে, যাতে একটি সিস্টেম ভাষা বুঝতে এবং তার সাথে সাংকর্ষণ করতে পারে। এটি ভাষার বুঝতে, পূর্বাভাস তৈরি করতে এবং সম্প্রচার করতে আরও কার্যকর হতে পারে।

2. **কম্পিউটার ভিশন:** AI এবং মেশিন লার্নিং ব্যবহার করে কম্পিউটার ভিশনে বৃদ্ধি হচ্ছে, যাতে কম্পিউটার ছবি বা ভিডিও সম্পর্কে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বুঝতে পারে এবং তার সাথে সংকর্ষণ করতে পারে।

3. **স্বাধীনভাবে কাজ করতে সক্ষম সিস্টেম:** স্বাধীনভাবে কাজ করতে সক্ষম AI সিস্টেমের উন্নতি হতে চলেছে, যাতে এই সিস্টেমগুলি নতুন পরিস্থিতিতে নতুন পর্যায়ে সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হতে পারে।

4. **রোবোটিক্স এবং অটোনমাস সিস্টেম:** রোবোটিক্স এবং অটোনমাস সিস্টেমগুলি আরও বৃদ্ধি হবে, যাতে তারা মানুষের সাথে কার্যকরভাবে সহযোগিতা করতে পারে।

5. **কোয়ান্টাম কম্পিউটিং:** কোয়ান্টাম কম্পিউটিং প্রযুক্তি আসছে, যা অত্যন্ত শক্তিশালী হতে সক্ষম এবং কিছু ক্রিয়াকলাপগুলির জন্য দ্রুততা এবং সহজে সম্ভাবনা প্রদান করতে সক্ষম।

এগুলি মতো পরিবর্তনের অনুমান করা হচ্ছে, কিন্তু ভবিষ্যতে আরও অনেক প্রযুক্তি এবং প্রকল্পগুলি বাজারে আসতে পারে যা আমরা এখনো আগামীতে জানি নি।

????কিছু আরবি শব্দের বাংলা অর্থ : আসুন আমরা জেনে নি ???? Sunday, 07th January, 2024


 
১. #বিসমিল্লাহ (بِسْمِ اللّهِ)
বিসমিল্লাহ অর্থ: আল্লাহর নামে শুরু।
তাৎপর্য: আল্লাহর বারাকাহ ও নিরাপত্তা অর্জন।    

২. #আলহামদুলিল্লাহ (الْحَمْدُ لِلّٰهِ)
আলহামদুলিল্লাহ অর্থ: সকল প্রশংসা আল্লাহর।
তাৎপর্য: আল্লাহর প্রশংসা ও শুকরিয়া আদায় করা।        

৩. #সুবহানাল্লাহ (سُبْحَانَ اللّٰهِ)
সুবহানাল্লাহ অর্থ: আল্লাহ পবিত্র।
তাৎপর্য: মহান আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা করা।       

৪. #আল্লাহু_আকবার (اللّٰهُ أَكْبَرُ) 
আল্লাহু আকবার অর্থ: আল্লাহ সবচেয়ে বড়।
তাৎপর্য: আল্লাহর বড়ত্ব ঘোষণা ও সবকিছুর উপরে আল্লাহকে স্থান দেয়া।       

৫. #লা_ইলাহা_ইল্লাল্লাহ (لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللّٰه)
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ অর্থ: আল্লাহ ছাড়া কোন ইলাহ (মাবুদ) নেই।   
তাৎপর্য: আল্লাহর এককত্ব ঘোষণা করা এবং তার সাথে অন্য কাউকে শরীক না করা।       

৬. #জাজাকাল্লাহু_খাইরান   
(ﺟَﺰَﺍﻙَ ﺍﻟﻠّٓﻪُ ﺧَﻴْﺮًﺍ)
জাযাকাল্লাহু খাইরান অর্থ: আল্লাহ আপনাকে উত্তম প্রতিদান দিন।       
তাৎপর্য: অন্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা।

৭. #মাশাআল্লাহ (ما شاء الله)
মাশাআল্লাহ অর্থ: আল্লাহ যেমন চেয়েছেন।
 তাৎপর্য: আল্লাহর প্রশংসা করা। 

৮. #ইনশাআল্লাহ (ان شاء الله)
ইনশাআল্লাহ অর্থ: যদি আল্লাহ চান।
তাৎপর্য: আল্লাহর উপর ভরসা কর। 

৯. #আস্তাগফিরুল্লাহ (ﺃﺳﺘﻐﻔﺮ ﺍﻟﻠﻪ)
আস্তাগফিরুল্লাহ অর্থ: আমি আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই।
তাৎপর্য: আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাওয়া ও তাওবাহ করা।  

১০.  #ফি_আমানিল্লাহ্ (في أمان الله)
ফি আমানিল্লাহ অর্থ: আল্লাহর নিরাপত্তায় সোপর্দ করলাম।
তাৎপর্য: আল্লাহর নিকট নিরাপত্তা চাওয়া, ভরসা করা।

১১. #নাউযুবিল্লাহ (نعوذ بالله)
নাউজুবিল্লাহ অর্থ: আল্লাহর কাছে এথেকে আশ্রয় চাই।
তাৎপর্য: মন্দ কিছু শুনলে কিংবা দেখলে এথেকে আশ্রয় প্রার্থনা করা।

১২. #লা_হাওলা_ওয়ালা_কুওয়াতা_ইল্লা_বিল্লাহ  
(لَا حَوْلَ وَلَا قُوَّةَ إِلَّا بِاللَّهِ)
অর্থ: আল্লাহর সাহায্য ও সহায়তা ব্যতীত আর কোন আশ্রয় ও সাহায্য নেই।
তাৎপর্য: আল্লাহর এককত্ব ও বড়ত্ব প্রকাশ।  

১৩. #ইন্নালিল্লাহি_ওয়া_ইন্না_ইলাইহি_র_জিউন 
(إِنَّا لِلّهِ وَإِنَّـا إِلَيْهِ رَاجِعونَ) 
অর্থ: নিশ্চয়ই আমরা মহান আল্লাহর জন্য এবং আমরা তার দিকেই ফিরে যাবো। 
তাৎপর্য: মৃত্যু ও পরকালের স্মরণ।

১৪. #সুবহানাল্লাহি_ওয়া_বিহামদিহি  
(سُبْحَانَ اللَّهِ وَبِحَمْدِه)
অর্থ: মহাপবিত্র আল্লাহ এবং সকল প্রশংসা তাঁর জন্য।
তাৎপর্য: আল্লাহর পবিত্রতা ও প্রশংসা ঘোষণা করা। 

১৫. #সুবহানাল্লাহিল_আযীম 
(سبحان الله العظيم)
অর্থ: মহপবিত্র আল্লাহ, যিনি মহান।
তাৎপর্য: আল্লাহর পবিত্রতা ও বড়ত্ব ঘোষণা।

 Alhamdulillah

বেলা শেষে- Saturday, 28th October, 2023

সৃষ্টির নতুন রূপঃ

যেকোনো কিছুর শুরু হয় অনুতাপ থেকে। তুমি যদি কোনো কিছু বুঝতে চাও, বিষয়টার সমাপ্তিতে নিজের ভুল থেকে অর্জিত অভিজ্ঞতাই তোমাকে শেখাবে। যেকোনো কিছুর পরিসমাপ্তি থেকে তোমার জীবনে নিজের পথচলা শুরু হবে। যেকোনো কিছুর প্রতি করা ছোট ছোট ভুল, অনুতাপ তোমাকে অনুভব করাবে বাস্তবতা। তোমার অনুভবের অভিজ্ঞতা জীবনভর তোমাকে মজবুত করে যাবে। যা কোনো কিছুর আকৃষ্টতা থেকে তোমাকে মুক্ত রাখবে।

শুরুর সময় থেকে সবকিছুই সাধারণ থাকে। আস্তে আস্তে যেকোনো কিছুর প্রতি অনুতাপের অনুভবই তোমার জীবনের নতুন রূপ ধারণ করাবে। নিজেকে বিশ্বাস করে ভরসা করতে শিখো। জগতের মায়া ত্যাগ করতে পারবা। নিজেকে নিঃস্বার্থ রেখে পথ চললে জটিল জীবনের সরলতা খুঁজে পাবা। কোনো কিছুই মায়া নয়, সবকিছুই মোহ যা আমাদের সীমিত সময়ের ভালোলাগার অনুভব থেকে নিজেকে সারাজীবনের একাকিত্বের অনুভব করায়। একান্তে নিজের মতো করে জীবন পরিচালনা করা যায়। কিন্তু একাকিত্বতা জীবনকে নিঃশেষে বিভাজ্য করে দেয়।

প্রিয়জনের থেকে প্রয়োজন তোমাকে উপরে উঠতে সাহায্য করবে। কারণ প্রিয়জন তোমার থেকে আশা রাখে, যা পূরণ করতে না পারলে তুমি তার সাথে চলার যোগ্যতা রাখো না। কিন্তু তুমি নিজের প্রয়োজনে অসম্ভবকেও সম্ভব করতে পারবা নিজের জন্য, যা তোমাকে স্বাধীন ভবিষ্যত গড়তে সাহায্য করবে। যেখানে কোন স্বার্থবাদী ব্যক্তির তোমার জীবনে হস্তক্ষেপ করার কোন অধিকার থাকবে না। হয়তো নিজের একান্তের পথচলায়ও অনেকের সাথে পরিচিতি রাখতে হবে সমাজে চলার জন্য। কিন্তু দিনশেষে তুমি শান্তিপূর্ণ সফল জীবনের অধিকারী।

জীবনের জন্য যখন তুমি আশা না রেখে পরিবারের ভরসায় নিজেকে তৈরি করবা। তখন তোমার জীবনে সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্তগুলো নিজের বিবেচনায় নিতে শিখে যাবা। কোনো কিছুর পথ চেয়ে থাকার চাইতে, সামনের সময়ের সাথে নিজেকে এগোনো ভালো। কেননা জীবন একটা বাঁধাযুক্ত ফাঁকা রাস্তার মতো। যেখানে বাঁধা পেরোনোর অলসতায় বসে থাকার চাইতে, যেকোনো কিছুর সম্মুখীন হয়ে মোকাবেলা করে এগিয়ে যাওয়া ভালো। হেরে গেলেও সবকিছু সামলে নতুন রাস্তায় নিজেকে পরিচালনা করতে পারবা বাঁধার অভিজ্ঞতা থেকে। তাই অলসতায় বসে থেকে নয়, নিজ পায়ে দাঁড়িয়ে চলতে শেখো।

তাড়াহুড়ার মূহুর্তে নিজেকে সামলাতে শেখো, অল্প সময়ে সবকিছুর সমাপ্তি পাবা। প্রকৃতির মায়ায় জীবনের মোহ ত্যাগ করলে শেষের পূর্ণতা পাবা।

নতুন বছর শুরু হোক ঈমান ও আমলের সাথে Saturday, 06th January, 2024

 

 

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু!

 

একটি সতর্কতা: আমাদের জীবনটি হয়তো একটি পরীক্ষা, কিন্তু আল্লাহর সাথে আমাদের সম্পর্ক একটি অসীম সৌভাগ্য। তাই, সবসময় আল্লাহর দিকে মুখ তোলুন এবং তার নিকটে সান্ত্বনা ও সুরক্ষা অনুভব করুন।

 

কোনও পরিস্থিতিতেই, "ইন আল্লাহি মা আশোব" - আল্লাহ তার করুণার বাণীতে আমরা ভরসা রাখি। কখনওই আপনি একা নয়ে যাচ্ছেন না, আল্লাহ সব সময় আপনার সাথে আছেন।

 

ইসলাম আমাদেরকে দিচ্ছে একটি দিকে চলতে, আল্লাহর ইচ্ছামতো জীবন করতে। হাদীসে আছে, "যত সময় তোমার দিতে হবে তুমি এবং যত সময় তোমার বসতি থাকতে হবে, তাতে আল্লাহ তোমার জন্য সবচেয়ে উত্তম কাজটি চায়ে।"

 

তাই, আমরা সবসময় আল্লাহর ইচ্ছামতো জীবন চাইতে পারি। হাসতে এবং দু: খিত হতে, কিন্তু শোক এবং সোঁচ বজায় থাকতে চাইব না।

 

আমরা একটি বিশেষ সময়ে আছি, যেটি আমাদের পূর্ণাঙ্গ প্রতিকূলিত হতে সহায় করতে পারে। প্রতিটি দোয়া শোনানো এবং সততা, করুণা, এবং সহানুভূতির প্রতি আমাদের অবলম্বন থাকতে হবে।

 

এই সময়ে, আমরা আপনাদের সবাইকে শান্তি এবং সুখের সাথে একটি আনন্দময় জীবনের প্রকাশ করতে অনুরোধ করছি। আল্লাহ সবাইকে আপনার বান্ধব সাথে আত্মীয়তা এবং প্রেমে আবৃদ্ধি করুক।

 

আপনাদের সবাইকে আল্লাহর কয়েকটি অমূল্য সুবিধা এবং অমূল্য সময় প্রদান করুক। ইসলামে আপনার জীবন পরিবর্তন হতে পারে এবং তাদের প্রবল দোয়া এবং ইমানের মাধ্যমে আপনি আপনার লক্ষ্যে অগ্রগতি করতে

 

অনুরোধ করছি। আল্লাহ সবাইকে আপনার বান্ধব সাথে আত্মীয়তা এবং প্রেমে আবৃদ্ধি করুক।

 

আপনাদের সবাইকে আল্লাহর কয়েকটি অমূল্য সুবিধা এবং অমূল্য সময় প্রদান করুক। ইসলামে আপনার জীবন পরিবর্তন হতে পারে এবং তাদের প্রবল দোয়া এবং ইমানের মাধ্যমে আপনি আপনার লক্ষ্যে অগ্রগতি করতে সাহায্য করতে পারে।

 

আল্লাহর কাছে আমাদের সবচেয়ে বড় হরফ হলো "তাওবা" - পশ্চাত্তাপ এবং মানবিক উন্নতির দিকে এগিয়ে যাওয়া। যে কোনও ভুল করলে, তাওবা করুন এবং আল্লাহর কাছে মুক্তি এবং ক্ষমা প্রাপ্ত করুন।

 

এই নতুন বছরে, আল্লাহ আপনাদের জীবনকে সমৃদ্ধি, শান্তি, এবং সুস্থতা দান করুক। আমাদের প্রতিটি পদক্ষেপই আল্লাহর ইচ্ছামতো হোক এবং তিনি আপনাদেরকে সব ভালোবাসুক।

 

শুভ নববর্ষ! ????✨????